Monday, December 9, 2019

একটি পিঁয়াজের জন্য / ইন্দিরা মুখোপাধ্যায়

ও বৌদি, একটা বড় পিঁয়াজ কাটি? এতেই হবে বলো না?
বৌদি বলেন, দাঁড়াও বাপু, এ পেঁয়াজী আর মানায়না । 

একটু ঝিরিঝিরি কেটে রাখ মুসূরডালের  ফোড়নে
আরেকটু কুচো রেখে দিও ডিম টা ভাজার জন্যে।
বাবু খাবে শশার রায়তা, দুচামচ তার জন্য
আমার স্যালাডে দুটো চাকা রাখলে অমি ধন্য। 
ডুমো করে কেটে রাখ মুর্গির স্ট্যু হবে 
বেগুণ পোড়ার জন্যে রেখো, রাতের বেলায় খাবে। 
টমির আবার বদ অভ্যেস, পিঁয়াজ ছাড়া রোচেইনা 
স্যুপের জন্য মাখনে ফোড়ন? না দিলেই হয়না?
ছেলেটার স্যান্ডুইচে পাতলা দুটি স্লাইস রেখো 
মেয়েটার স্কুল ফেরত ঝালমুড়িটাও কিন্তু মেখো । 
শাশুড়ির চাই আজ‌ দুপুরেই চিংড়ি বাটিচচ্চড়ি   
শ্বশুরের চাই আজকেই ভাই ঢেঁড়স পোস্ত হড়হড়ি। 
একটা মোটে পিঁয়াজ পড়ে এই দিয়ে যে কি করি?  
বিকেলে গেস্ট আসবে, চাউমিনেই তবে সারি? 
পেঁয়াজ ছাড়া কি চাউমিন হয়? ভাবতে কাবার বেলা   
কবে যে ভাই শেষ হবে এই পিঁয়াজির খেলা?  

ও বৌদি? একটা মোটে বড় পিঁয়াজ, এতেই হবে বল?
না হয় তো মাথা খেও আগেই ভেবে চল। 

Wednesday, August 14, 2019

Naree

তুমি কি কারো বক্ষলগ্না? কিম্বা ঘুম ভেঙে ওঠা টাটকা কান্না?
অথবা যদি মনে পড়ে স্মৃতি? সেও ছিল, হয়নি কি ক্ষতি?
একলা চলতে শেখোনি কেন যে! বারেবারে তোমায় বলেছিলাম যে 
একলা চলো, একলা চলো,
হয়ত আগে, কিম্বা পরে,  দোলপলাশের বৃষ্টি ঝরে
পথের দুপাশ তাকিয়ে নিও, বন্ধু থাকলে সঙ্গে নিও।
একলা চলো একলা চলো, পুরুষটিকে আগেই বলো।  
তুমিও পারো যে একলা চলতে, ভালোয় মন্দে ঝড়ে বৃষ্টিতে 
নারী হয়ে ছিলে তার পাশে, আজো তোমার মনটা যে হাসে   
ওড়না তোমার ত্রস্ত হয়েছে, চুনরীতে কিছু দাগ যে লেগেছে 
পারবেনা নারী একলা চলতে ? মা না হয়ে শুধু জিতে যেতে 
সেখানেই ওরা গেরামভারী  দেখিয়ে দাও না বাঁচতে যে পারি।
যুগে যুগে ওরা ধর্ষক হয়,   লিঙ্গ ওদের মহান সহায় ।  
বাজে কথা ছাড়ো কাজে এসো নারী,বলো ধর্ষককে যেন সাজা দিতে পারি। 

Wednesday, March 7, 2018

সাজ

 
ও মেয়ে তুই কার জন্যে আলতা পরিস? কার জন্যে হাত রাঙাস?
কিসের জন্যে মেহেন্দীতে খয়ের ভেঙ্গে লালচে বানাস?
কেন রে তোর মাথার সিঁথি টকটকে লাল শালু কাপড়?
ধবধবে তোর শাঁখার কোলে লাল পলাটা আজো অনড়!
বাঁহাতের তোর নোয়া টা যেন কালশিটে সেই আগের!
বেঁধে রাখার অভ্যেসটা সয়েই গেল আজো তোদের।
কপালের টিপ টুকটকে লাল, ফেটেছে মাথাটা সজোরে
ধাক্কা লেগে সত্যি সেদিন বউ হয়েছিস তেমনি করে।
কার ব‌উ তুই? কেন রে ব‌উ? কিসের জন্যে বুক বাঁধিস?
শ্যামলা গাঁয়ের আদুড় গায়ে আগুণ তাতে কি রাঁধিস?
শ্যামলা মেয়ের আলতাপাটি যুগে যুগে থাকল রাঙা
আসলে তো কপালটা তোর এক্কেবারেই ছিল ভাঙা।
আখ পেষায়ের যাঁতাকলে অহোরাত্র চাপে আছিস
ত্যাগের মন্ত্র জীবন করে মুখ বুঁজে তুই হাসি চাপিস।
বারোমেসে তেরো পাব্বন কার জন্য কেন করিস?
লক্ষ্মী পাতা, উপোস ব্রত বসুধারা যত্নে আঁকিস।
যার জন্য এত মঙ্গল, আঁকড়ে রাখিস মানুষটিকে
সে কি তার মূল্য বুঝে আগলে রাখে শুধুই তোকে?

Monday, December 25, 2017

ক্রিসমাস

কেকমাস আজ মধুমাস, ক্রিসমাস পোষমাসে
একাকার হল হাড়মাস, শীতমাস সব্বোনেশে !
বাকী তিনমাস পর পচামাস তাই বাঁচো ভাই বেশ কশে
আজ ক্রিসমাস, ঝোলাগুড় খাস আর কেক খাস বসে বসে ।

রসেবশে বাঙালী সে কেকপিঠে খায়, মন্দিরে বসে বসে ক্যারলও শোনায়
ভোগ বেড়ে, গীর্জায় গীতা পাঠ করে, নাটমন্দিরে বসে চকোলেট ছোঁড়ে ।

খেঁজুর গুড়ে কেক ডুবিয়ে ঢেঁকুর তুলে মরি গাউন গায়ে ঘোমটা টেনে পান চিবুতেও পারি !

Saturday, October 8, 2016

কন্যাং দেহি

আমার কন্যা শিউলি বন্যা, বিদায়লগ্ন বিজয়ায়
বিসর্জনের বাজনা বাজে শিউলিতলার আঙিনায়।
আমার পুত্র কাশফুল ম্লান, মলিন হল তার স্বপ্ন 
হিমের ছোঁয়ায় ঝরে গেল তার সুঠাম দেহের যত্ন। 

দুর্গা আমার কন্যাশ্রী বড় ঘরের দুর্গারত্ন।
দিনকয়েকটা হাতে যে পেলাম তাতেই আত্যি-যত্ন।
আমার কন্যা, আমার দুর্গা বিজয়ার কনকাঞ্জলি
রাত পোহালেই মনখারাপ আর শরত শেষের ফুল তুলি।

আমার দুর্গা বিজয়াদশমী আসছে বছর আবার
রূপং দেহি, জয়ং দেহি আসবে ঘরে আমার।
আমার দুর্গা কন্যাকুমারী লগ্নভ্রষ্টা আত্তিশ্যা
পথে পড়ে থাকা কোজাগরী ভ্রূণ দীপাণ্বিতার পুণ্যাশা।

আমার দুর্গা সারাটিবছরে শ্লীলতাহানির অপমানে
ধর্ষিতা আর লাঞ্ছিতা সে যে বাঁচতে পারেনা সম্মানে।
আমার মেয়েটা ধর্ষিতা আজ চোখের কোণায় কালি।
প্রতিবাদে তার অ্যাসিড-অ্যাটাক ঈভটিজিংয়ে বলি।

তোমার দুর্গা হয়ত গোপনে পণপ্রথার বলি
পণ্যরূপেও পাচার দুর্গা শহরের চোরাগলি।
আমার দুর্গা লেবারপেনেতে ভরাপোয়াতির রূপ
সম্ভোগে আর শীত্কারে সাড়া বাকী সময়েতে চুপ।  

আমার কন্যাভ্রূণেতে লুকিয়ে সেই দুর্গার অংশ
তবু ঘরে ঘরে দুর্গারা করে কন্যারে নির্বংশ । 
কন্যাং দেহি, কন্যাং দেহি, হোক কলরব বিজয়ায়
আমার দুর্গা মাতিয়ে রাখবে বোধন থেকে দশেরায়।  

কন্যাং দেহি, কন্যাং দেহি কন্যার জয়গান।
আমার দুর্গা শুনতে কি পাও কন্যাশ্লোকের গান? 
ওরে কে আছিস? আয় না ছুট্টে, বাঁচা না জ্যান্তদুর্গাকে
দুর্গা না এলে দুর্গাকে আর কুমারীপুজোয়  মানবে কে ?